এবং নিউজ

বাজার দখলের প্রতিযোগিতায় এখনো LG Nexus 4

গুগলের নেক্সাস প্রোগ্রামের সফলতা ও জনপ্রিয়তার অন্যতম মূল কারণ এর দাম। তুলনামূলক কম দামে নেক্সাস প্রোগ্রামের মাধ্যমে ফোন ও ট্যাবলেট বাজারজাত করতে শুরু করে গুগল। ফলে নতুন এক মূল্যমানের বাজারের সূচনা হয়। বিশেষ করে ফোনের জগতে কমদামে অ্যান্ড্রয়েড থাকলেও নেক্সাস ৪-কে ধরা হয় কমদামের মধ্যে সেরা অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইস। যদিও নেক্সাস ৪ এখন আর অফিসিয়ালি বিক্রি হচ্ছে না বা প্লে স্টোরে নেই,  তবুও কিছু কিছু অনলাইন স্টোর, মার্কেট কিংবা সেকেন্ড হ্যান্ড নেক্সাস ৪ এখনও সহজলভ্য হওয়ায় ক্রেতারা প্রায়ই “নেক্সাস ৪ কিনেন। তাদের জন্যেই আজকের এই তুলনামূলক রিভিউ। google-lg nexus 4

 

হার্ডওয়্যার

নেক্সাস ৪-এ রয়েছে কোয়াড-কোর স্ন্যাপড্রাগন এ৪ প্রো চিপসেট যার সঙ্গে ২ গিগাবাইট RAM ও অ্যাড্রিনো ৩২০ জিপিইউ যা মিলে সর্বশেষ অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ্লিকেশন ও গেমস চালানোর মতো যথেষ্ট ক্ষমতা যোগানোর সামর্থ্য রাখে। বেশি RAM থাকার কারণে নেক্সাস ৪-এর মাল্টিটাস্কিং সুবিধাও অনেকখানি বৃদ্ধি পেয়েছে যা যে কোনো ব্যবহারকারীরই বেশ কাজে আসবে।

নেক্সাস ৪ ইন্টারনাল স্টোরেজ ৮ ও ১৬ গিগাবাইট । তবে ইন্টারনেটের গতিতে সাপোর্ট করে ৪২ এমবিপিএস ডিসি-এইচএসডিপিএ যার অর্থ এটি সারাবিশ্বে সবচেয়ে দ্রুতগতির ৩জি কভারেজ নিতে সক্ষম। হার্ডওয়্যারের দিক দিয়েও তুলনামূলক শক্তিশালী প্রসেসর, জিপিইউ ও RAMএর কারণে সহজেই এই দিক থেকে এগিয়ে আছে নেক্সাস ৪। পাশাপাশি ওয়্যারলেস চার্জিং-ও হতে পারে দারুণ একটি সুবিধা ।

ডিসপ্লে:

নেক্সাস ৪এর অন্যতম প্রশংসনীয় ফিচার হচ্ছে এর ডিসপ্লে। পিক্সেলের হিসেবে নেক্সাস ৪-এর ডিসপ্লে রেজুলেশন বেশি হলেও পিপিআই বেশি নয়। প্রসঙ্গত, নেক্সাস ৪-এর ৪.৭-ইঞ্চি ডিসপ্লের পিপিআই ৩১৮;

সফটওয়্যার:

নেক্সাস ৪ অ্যান্ড্রয়েডের সর্বশেষ সংস্করণ আপডেট পেয়েছে এবং ভবিষ্যতেও অনেকদিনের জন্য আপডেট পেতে থাকবে। এছাড়াও ডেভেলপারদের মধ্যে জনপ্রিয় ডিভাইস হওয়ায় অফিসিয়ালি না হলেও আনঅফিসিয়ালি নেক্সাস ৪ আরও বহুদিন আপডেট পেতে থাকবে। এর একটি দারুণ উদাহরণ হতে পারে প্রথম নেক্সাস ডিভাইস নেক্সাস ওয়ানের কিটক্যাট আপডেট পাওয়া যেটি অ্যান্ড্রয়েড ৪.০ আইসক্রিম আপডেট থেকেই বঞ্চিত হয়েছিল।

সবমিলিয়ে কেবল নেক্সাস প্রোগ্রামের জন্যই নেক্সাস ৪-কে সফটওয়্যারের দিক দিয়ে এগিয়ে রাখা যায়।

ক্যামেরা:

ফটোগ্রাফির জন্য অ্যান্ড্রয়েড ফোন কেনা নতুন কিছু নয়। নেক্সাস ৪-এ রয়েছে ৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা । দিনে ভালোমানের ছবি আসে এবং ১০৮০পি ভিডিও শুট করা সম্ভব। লো-লাইট কন্ডিশনে এই টি খুব একটা ভালো ছবি তুলতে পারে না।

গুগল জানিয়েছে শিগগিরই অ্যান্ড্রয়েডের স্টক ক্যামেরা অ্যাপ্লিকেশনে RAW ফাইল ফরম্যাট সাপোর্ট করবে যা সত্যিই বড় ব্যাপার।

ব্যাটারি লাইফ:

নেক্সাস ৪-এর ব্যাটারি ক্যাপাসিটি ২১০০ এমএএইচ। নেক্সাস ৪-এ ব্যবহৃত হয়েছে শক্তিশালী প্রসেসর। একই সঙ্গে এটি বেশ পাওয়ার-হাঙরিও বটে। তাই খুব দ্রুত ব্যাটারি শেষ হয়ে যায় নেক্সাস ৪-এ।

ধন্যবাদ

About the author

শামীম রেজা

বপ্ন দেখতে ভালো লাগে, ভালো লাগে জানতে। জানানোর মধ্যেও আনন্দ পাই। পাগলের মত সারাক্ষণ প্রোগ্রামিং করতে যেমন পছন্দ করি, তেমনি পছন্দ করি লিখতে, জীবন নিয়ে ভাবতে। অফিস, প্রোগ্রামিং আর আমার ছেলে, এই নিয়েই আমার দুনিয়া।

Leave a Comment